জাপানের অর্থনীতিতে পাঁচ বছরের সবচেয়ে নিম্ন

গত পাঁচ বছরের মধ্যে অর্থনীতির এমন হাল আর দেখেনি জাপান। মূলত ঘূর্ণিঝড়, বৈশ্বিক চাহিদা কমে যাওয়াই এর অন্যতম কারণ। তবে শঙ্কার বিষয় হচ্ছে, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে এ বছরও অর্থনীতির গতি ফেরার সম্ভাবনা কম।

গত বছরের শেষ প্রান্তিকে দেশটির মোট দেশজ উৎপাদন কমেছে আশঙ্কার চেয়েও বেশি, অর্থনীতি সংকুচিত হয়েছে ৬ দশমিক ৩ শতাংশ। খবর বিবিসি অনলাইনের।

গতকাল প্রকাশিত সরকারি পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, চীন থেকে ছড়িয়ে পড়া নভেল করোনাভাইরাস জাপানে আঘাত হানার আগেই গত বছরের শেষ দিকে দেশটির জিডিপি সংকুচিত হয়েছে। তৃতীয় প্রান্তিকের তুলনায় ২০১৯ সালের শেষ প্রান্তিকে জিডিপি ১ দশমিক ৬ শতাংশ সংকুচিত হতে দেখা গেছে।

বিশ্বের তৃতীয় বৃহৎ অর্থনীতির বিনিয়োগকারীরা এখন চিন্তিত করোনাভাইরাস নিয়ে। কারণ, করোনাভাইরাসের কারণে জাপানে চীনের বেশ কয়েকটি কারখানা বন্ধ রাখতে হয়েছে। সেই সঙ্গে চীন থেকে আসা পর্যটকদের সংখ্যাও কমেছে ব্যাপক পরিমাণে।

জাপানের অর্থমন্ত্রী ইয়াসুতোশি নিশিমুরা বলেন, সরকার অর্থনীতি ও পর্যটনের ওপর করোনভাইরাস প্রাদুর্ভাবের প্রভাব মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় সব পদক্ষেপ নিতে প্রস্তুত।

চার প্রান্তিকের প্রবৃদ্ধি পরিসংখ্যান প্রকাশ করেছে জাপান। এর মধ্যে চতুর্থ প্রান্তিকে ২০১৪ সালের দ্বিতীয় প্রান্তিকের পর সবচেয়ে বড় সংকোচন দেখা গেছে। সে সময় জাপানের অর্থনীতি ১ দশমিক ৯ শতাংশ সংকুচিত হয়। সে সময়ও বিক্রয় কর বাড়ায় সরকার। চীনা কর্তৃপক্ষ। আরও একটি বড় হাসপাতাল দ্রুততম সময়ের মধ্যে তৈরির প্রক্রিয়া চলছে বলে জানায় দেশটির কর্তৃপক্ষ।

#বাংলা প্রবাহ২৪/এএল

শর্টলিংকঃ