শুদ্ধ ধারায় দেশের লোকনৃত্য এবং লোকসংস্কৃতি চর্চা

  • 190
    Shares

নৃত্যপ্রেমী প্রিয়জন, আমাদের ইতিহাস এবং ঐতিহ্য জেনে-বুঝে সঠিক ও শুদ্ধ ভাবে লোকনৃত্য-লোকসংস্কৃতি চর্চা, সন্ধান এবং গবেষণা করি।

বাংলাদেশে বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠী/জেলা/উপজেলা/গ্রামের অপ্রচারিত লোক নৃত্য গুলো সংগ্রহ করে পসরিমার্জন, পরিবর্ধন ও পরিশোধনের মাধ্যমে আমাদের নিজস্ব নৃত্যধারা তৈরি করি। যেমন – দাইনৃত্য, গম্ভীরা, আলকাপ, ছোকরা নাচ, ঘেঠুনাচসহ ইত্যাদি নৃত্যশৈলী।

আসুন আমরা মাতৃভূমির সঠিক নৃত্যধারা তৈরিকরণের জন্য যার যার অবস্থান থেকে নিজেকে তৈরি করি একেকজন গবেষক হিসেবে। বহির্বিশ্বে আমাদের লোক নৃত্যকে অর্থনৈতিক, সামাজিক পারিপার্শ্বিকতা বিবেচনায় নিয়ে শুদ্ধ ভাবে উপস্থাপন করি।

নৃত্যশিল্পী ও নাট্যকর্মী পলাশ কুমার দে

লোকনৃত্য আমাদের যুগ-যুগান্তরের ইতিহাস। তাই লোক নৃত্যকে বিকৃত/মনগড়া/নতুনত্বের নামে ভিন্ন ভাবে সৃজিত করে উপস্থাপন করা কাম্য নয়। যেমন- অনেক সময় বহির্বিশ্বে আমাদের লোক নৃত্য উপস্থাপন করে তখন, – গৃহিণী /জেলেনী / বেদেনী /কৃষাণীদের মাথা থেকে পা পর্যন্ত গাদাগাদা গহনা, নতুন উন্নত মানের পোশাক জড়িয়ে দেয়। ফলে বহির্বিশ্বের মানুষ আমাদের দেশের সাধারণ মানুষদের সম্পর্কে বিরূপ ধারণা পোষণ করে নেয়।

লোকসংস্কৃতি একটি দেশের ইতিহাস-ঐতিহ্যের পরিচয় বহন করে। তাই বহির্বিশ্বের মানুষদের কাছে আমাদের সংস্কৃতির শুদ্ধ রূপটি তুলে ধরতে হবে।

লেখক: পলাশ কুমার দে

শিক্ষার্থী, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় এবং নৃত্যশিল্পী ও নাট্যকর্মী।

,
শর্টলিংকঃ