৭১’এর গণহত্যার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি এবং চলমান গণহত্যার প্রতিবাদে জেনেভায় নির্মূল কমিটির মানববন্ধন

১ জুলাই গুলশান হলি আর্টিজান ক্যাফের নৃশংস হত্যাকাণ্ডের ৫ম বার্ষিকী উপলক্ষে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সর্ব ইউরোপীয় শাখা এক আন্তর্জাতিক ওয়েবিনার আয়োজন করেছে। নির্মূল কমিটির সর্ব ইউরোপীয় শাখার সভাপতি সমাজকর্মী তরুণ কান্তি চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই ওয়েবিনারের প্রধান বক্তা নির্মূল কমিটির কেন্দ্রীয় সভাপতি লেখক সাংবাদিক শাহরিয়ার কবির ৫ বছর আগে এই দিনে জঙ্গী মৌলবাদী ঘাতকদের হামলায় গুলশান হলি আর্টিজান ক্যাফেতে বাংলাদেশে সহ বিভিন্ন দেশের নিহত নাগরিকদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন, ‘ধর্মের নামে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে চলমান হত্যা, সন্ত্রাস ও সংঘাত মানবসভ্যতার জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে। ১৯৭১-এর মুক্তিযুদ্ধকালে বাংলাদেশে ধর্মের নামে ৩০ লক্ষ মানুষকে হত্যা করা হয়েছিল। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় এই গণহত্যার প্রতিবাদ দূরে থাক, স্বীকৃতিটুকুও দেয়নি। ’৭১-এর গণহত্যাকারীদের বিচার হয়নি বলে পাকিস্তান আজও নিজ দেশে বালুচ ও সিন্ধি জাতির উপর গণহত্যা অব্যাহত রেখেছে। গণহত্যা চলমান রয়েছে মায়ানমার, মধ্যপ্রাচ্য ও আফ্রিকা সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে। গণহত্যার নিন্দা এবং গণহত্যাকারীদের বিচার না হলে ধর্মের নামে হত্যা, সন্ত্রাস ও হানাহানি থেকে বিশ্বাসী মুক্তি পাবে না, বিশ্বে শান্তি প্রতিষ্ঠা করা যাবে না।’

এই সভায় ’৭১-এর গণহত্যার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতির দাবি এবং চলমান সকল গণহত্যার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে আগামী ৭ জুলাই দুপুর ১ টা থেকে জেনেভায় জাতিসংঘের মানবাধিকার কমিশনের সদর দফতরের সামনে ৫ ঘন্টা ব্যাপী সমাবেশ ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। সমাবেশে বিভিন্ন দেশের গণহত্যার ভিকটিম, মানবাধিকার সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং ইউরোপের ৮টি দেশের নির্মূল কমিটির নেতা ও কর্মীরা অংশগ্রহণ করবেন, যা অনলাইনে সমগ্র বিশ্বে প্রচারিত হবে।

১ জুলাইয়ের ওয়েবিনারে আরও বক্তব্য প্রদান করেন সমাবেশের আয়োজক নির্মূল কমিটির সুইজারল্যাণ্ড শাখার আহ্বায়ক মানবাধিকার নেতা খলিলুর রহমান, সুইডেন শাখার সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আখতার এম জামান, নির্মূল কমিটি যুক্তরাজ্য শাখার সভাপতি নুরউদ্দিন আহমেদ, ফ্রান্স আওয়ামী লীগ-এর সভাপতি এম এ কাশেম, ফ্রান্স আওয়ামী লীগ-এর সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন কায়েস, নির্মূল কমিটির সর্ব ইউরোপীয় কমিটির সভাপতি সমাজকর্মী তরুণ কান্তি চৌধুরী, নির্মূল কমিটির ফ্রান্স শাখার আহ্বায়ক চলচ্চিত্রনির্মাতা প্রকাশ রায়, নির্মূল কমিটির ফ্রান্স শাখার সাধারণ সম্পাদক আমিন খান হাজারী, নির্মূল কমিটির নরওয়ে শাখার সভাপতি মানবাধিকারকর্মী খোরশেদ আহমেদ, নির্মূল কমিটির সুইজারল্যান্ড শাখার সহসভাপতি সমাজকর্মী অরুণ বডুয়া, টুয়েন্টি ফার্স্ট সেঞ্চুরি ফোরাম ফর হিউম্যানিজম তুরস্ক-এর সাধারণ সম্পাদক লেখক ও চলচ্চিত্রনির্মাতা শাকিল রেজা ইফতি, নির্মূল কমিটির বেলজিয়াম শাখার সাধারণ সম্পাদক আনার চৌধুরী, নির্মূল কমিটির কেন্দ্রীয় সহ সাধারণ সম্পাদক শহীদসন্তান অধ্যাপক ডাঃ নুজহাত চৌধুরী শম্পা ও নির্মূল কমিটির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক সমাজকর্মী কাজী মুকুল।

২ জুলাই হলি আর্টিজান হত্যাকাণ্ডের ৫ম বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত নির্মূল কমিটির রাঙ্গামাটি শাখার উদ্যোগে আয়োজিত এক ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি শাহরিয়ার কবির বলেন, ‘হলি আর্টিজান ক্যাফেতে জঙ্গী মৌলবাদীদের নৃশংস হামলার পর গত পাঁচ বছরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মাঠ পর্যায়ে ১৫ হাজার জঙ্গী মৌলবাদীদের গ্রেফতার করেছে। জঙ্গী মৌলবাদীদের মোকাবেলায় সরকার সাফল্যের পরিচয় দিলেও তাদের মৌলবাদী দর্শন ও রাজনীতির বিরুদ্ধে কোনও সরকারি উদ্যোগ দৃশ্যমান নয়। জামায়াতে ইসলামীর প্রতিষ্ঠাতা আবুল আলা মওদুদীর দর্শন ও রাজনীতি বাংলাদেশে এখনও প্রচারিত হচ্ছে। এই একই দর্শন আল কায়দা, আইএসআইএস ও বোকো হারামের মতো আন্তর্জাতিক জঙ্গী মৌলবাদী সংগঠনসমূহ অনুসরণ করছে, যার মূল লক্ষ্য হচ্ছে ধর্মনিরপেক্ষ গণতান্ত্রিক মানবিক রাষ্ট্র ও সমাজ ধ্বংস করে শরিয়াভিত্তিক খিলাফৎ প্রতিষ্ঠা করা। জঙ্গী মৌলবাদীদের এই দর্শন রাজনৈতিক ও আদর্শিকভাবে মোকাবেলা করতে হবে, যার দিকনিদের্শনা আমাদের ’৭২-এর সংবিধানে রয়েছে।’

নির্মূল কমিটি রাঙ্গামাটি জেলা শাখার সভাপতি সাংবাদিক সুনীল কান্তি দে-এর সভাপতিত্বে ও নির্মূল কমিটি রাঙ্গামাটি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সৈকত রঞ্জন চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত এই ওয়েবিনারে আরও বক্তব্য প্রদান করেন নির্মূল কমিটির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক সমাজকর্মী কাজী মুকুল, নির্মূল কমিটির কেন্দ্রীয় সহ সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক শওকত বাঙালি, নির্মূল কমিটির বহুভাষিক সাময়িকী ‘জাগরণ’-এর যুগ্ম সম্পাদক সুইডেন প্রবাসী লেখক সাংবাদিক সাব্বির খান ও সর্ব ইউরোপীয় নির্মূল কমিটির কমিটির সাভাপতি সমাজকর্মী তরুণ কান্তি চৌধুরীসহ জেলার নেতৃবৃন্দ।

বাংলা প্রবাহ/এম এম

, ,
শর্টলিংকঃ