শিক্ষার্থীদের হলে বরণ করে নিলো নোবিপ্রবি

রিয়াদুল ইসলাম, নোবিপ্রবি:

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে বন্ধ ছিলো নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) আবাসিক হল সমূহ। দীর্ঘ দেড় বছর পর খোলা দেওয়া হয়েছে হলগুলো। এতে উচ্ছ্বাসিত আবাসিক শিক্ষার্থীরা।

আজ রবিবার (৩১ অক্টোবর) দুপুরে একডোজ টিকা নেওয়া সহ সকল শর্ত মেনে অফিসিয়াল ভাবে ১ টি ছাত্র হলে (আব্দুল মালেক উকিল হল) ও ২ টি ছাত্রী হলে (বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হল ও বিবি খাদীজা হল) আবাসিক শিক্ষার্থীদের তোলা হয়েছে।

শিক্ষার্থীদের হলে বরণ করে নিতে বিভিন্ন আয়োজন করেন হল কর্তৃপক্ষ। ফুল, বিশ্ববিদ্যালয়ের লগো সংবলিত মাক্স, কলম, চাবির রিং, মিষ্টি ইত্যাদি দিয়ে শিক্ষার্থীদের বরণ করে নেওয়া হয়।

দীর্ঘ দিন পর হলে ফিরে আব্দুল মালেক উকিল হলের আবাসিক শিক্ষার্থী ইমরান হোসাইন বলেন, ‘অনেকদিন পর হলে ফেরার অনুভূতি সত্যি অন্যরকম। কয়েকবার নোয়াখালী আসা হলেও ক্যাম্পাসে থাকার যে এক মধুর পরিবেশ তা পাইনি।চাই আবার প্রাণ ফিরে আসুক নোবিপ্রবিতে। আড্ডা, গান ও কলরবে মাতুক ১০১ একর।’

বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা হলের শিক্ষার্থী ইরিনা আজাদ বলেন, ‘দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর হলে ঢুকতে পেরে খুব আনন্দিত লাগছে। অনেকের সাথে দীর্ঘ দিন পর দেখা হলো। অনেকদিন পর ক্যাম্পাস তার প্রাণ ফিরে পাইতেছে।’

এ বিষয়ে আব্দুল মালেক উকিল হলের প্রভোস্ট ড. মেহেদী হাসান রুবেল জানান, ‘দীর্ঘদিন পর শিক্ষার্থীদের মাধ্যমে আমাদের শূন্যস্থান পূরণ হয়েছে এবং হল পরিপূর্ণ হয়ে আজ প্রাণ ফিরে পেয়েছে, আমরা খুবই আনন্দিত। শীতকাল সামনে রেখে শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন খেলাধুলার ব্যবস্থা করে রাখা হয়েছে। আনন্দের সাথে হলে থাকতে পারবে শিক্ষার্থীরা।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমি মনে করি হলে উঠার পর কোভিড পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে আমাদের সচেতন শিক্ষার্থীরা যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি সব সময় মেনে চলবে”।

বঙ্গমাতা হলের প্রভোস্ট মো. শাহীন কাদির ভূঁইয়া বলেন, ‘হল কর্তৃক নির্ধারিত নিয়মে শিক্ষার্থীরা এসে হলে উঠেছে। আবাসিক ছাত্রীরদের স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার জন্য সকল ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।’

বাংলা প্রবাহ/আর আই

, ,
শর্টলিংকঃ