প্রেমে ব্যর্থ হয়েই অভিনেতা হওয়ার জেদ !

Ecare Solutions

নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকীর খ্যাতি বলিউড ছাড়িয়ে এখন পুরো বিশ্বে। ‘ব্ল্যাক’, ‘গ্যাংস অব ওয়াসিপুর’, ‘মান্টো’, ‘দ্য লাঞ্চ বক্স’-এর মতো একাধিক দর্শকপ্রিয় ছবি তার ঝুলিতে। তবে তার আজকের এই অবস্থানের পেছনে রয়েছে এক ব্যর্থ প্রেমের গল্প, সম্প্রতি এক সাক্ষাতকারে সে তথ্যই ফাঁস করেছেন অভিনেতা।

উত্তর প্রদেশের ছোট্ট গ্রামে বড় হয়ে ওঠা আজকের নওয়াজ একসময় পাত্তা পাননি মনের মানুষের কাছে। টিভিই ছিল সেই মেয়ের ধ্যানজ্ঞান। আর তাইতো প্রেমে ব্যর্থ হয়ে শপথ নেন ‘একদিন নিজেও টিভির পর্দায় এসে দেখাবেন’। প্রতীজ্ঞা তিনি ঠিকই পূরণও করেছেন, তবে সেই প্রেম কিন্তু অসম্পূর্ণই রয়ে গেছে।

নওয়াজ আরও বলেন, ‘আসলে যখন আমাদের গ্রামে একটা টিভি এলো, তখন সেই মেয়ে সেখানে যেত কৃষি দর্শন দেখতে। যাওয়ার পথে মাঝে মধ্যে আমি ওকে বলতাম আমার সঙ্গে কথা বলতে। কিন্তু ওর কাছে কৃষি দর্শন দেখাটা এতটাই গুরুত্বপূর্ণ ছিল যে আমার সঙ্গে কথা বলত না। তারই প্রেক্ষিতে একদিন আমি বলেছিলাম, ‘একদিন তোকে টিভির পর্দায় এসে দেখিয়ে দেব’।

প্রেম হারিয়েই নওয়াজের মাথায় জেদ চেপেছিল অভিনেতা হওয়ার। এরপর প্রথম টিভি সিরিজে কাজ করবার পর গ্রামের এক বন্ধুকে ফোন করেছিলেন নওয়াজ। ওই মেয়েটিকে এই সুখবরটা পৌঁছে দেওয়ার জন্য। তবে পাল্টা জবাব যা এসেছিল তাতে বেশ হতাশ হয়েছিলেন অভিনেতা।

‘গ্যাংস অব ওয়াসিপুর’ অভিনেতা বলেন, ‘আমি ওই মেয়েটির কাছে প্রতিজ্ঞা করেছিলাম। স্বভাবতই আমি ওকে ফোন করে খবরটা জানাতে চেয়েছিলাম প্রথম টিভি সিরিজে কাজ করবার পর। তবে যখন গ্রামের এক বন্ধুকে ফোন করে মেয়েটার সঙ্গে কথা বলতে বললাম, তখন সে জানালো ওর বিয়ে হয়ে গেছে। শুধু তাই নয়, ৫-৬ টা সন্তান রয়েছে। আর যাকে সে বিয়ে করেছে সে টিভি দেখা তো দূরের কথা, ওকে ঘর থেকেও বের হতে দেয় না’।

 

বাংলা প্রবাহ/ সু

Ecare Solutions
শর্টলিংকঃ