বাসযোগ্য শহরের তালিকায় প্রথম ভিয়েনা

Ecare Solutions

বিশ্বের সবচেয়ে বাসযোগ্য শহরের তালিকায় প্রথমে জায়গা করে নিয়েছে অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনা। বৃহস্পতিবার ইকোনমিস্টের বার্ষিক প্রতিবেদন এ তথ্য প্রকাশিত হয়।

ইকোনমিস্ট ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (ইআইইউ)’র প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, অকল্যান্ডকে সরিয়ে ভিয়েনা শহর এবার শীর্ষ স্থান ছিনিয়ে নিয়েছে। অকল্যান্ডে করোনভাইরাসের বিধিনিষেধের কারণে এবার শহরটি ৩৪তম স্থানে জায়গা পেয়েছে।

ফেব্রুয়ারির শেষের দিকে রাশিয়া ইউক্রেনে আক্রমণ করার পরে দেশটির রাজধানী কিয়েভকে এই বছর অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি। রাশিয়ান শহর মস্কো এবং সেন্ট পিটার্সবার্গ পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞা এবং সেন্সরশিপের প্রভাবের কারণে র‌্যাঙ্কিংয়ে নিচের দিকে নেমেছে।

এএফপি জানায়, স্থিতিশীলতা এবং উন্নত অবকাঠামো, স্বাস্থ্যসেবা এবং সংস্কৃতি ও বিনোদনের প্রচুর সুযোগ প্রভৃতিকে বিবেচনা করে তালিকা দেয়া হয়েছে বলে সংস্থাটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

সেরা দশ শহর এর মধ্যে ৬টি দেশই ইউরোপভুক্ত। ভিয়েনার পরেই ডেনমার্কের রাজধানী কোপেনহেগেন এবং সুইজারল্যান্ডের জুরিখ শহর জায়গা করে নিয়েছে। সুইস শহর জেনেভা ষষ্ঠ, জার্মানির ফ্রাঙ্কফুর্ট সপ্তম এবং নেদারল্যান্ডসের আমস্টারডাম নবম অবস্থানে রয়েছে।

যৌথভাবে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ক্যালগারি শহরও। পঞ্চম এসেছে ভ্যাঙ্কুভার এবং অষ্টম স্থানে টরন্টো শহরের নাম। দশম স্থানে রয়েছে রয়েছে জাপানের ওসাকা ও অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্ন। ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিস তালিকার ১৯তম স্থানে রয়েছে।

যুক্তরাজ্যের রাজধানী লন্ডন ছিল বিশ্বের ৩৩তম ও যুক্তরাষ্টের নিউইয়র্ক ৫১ তম বাস যোগ্য শহরের তালিকায় জায়গা করে নিয়েছে। অন্যদিকে চীনের বেইজিং শহর ৭১ নম্বরে রয়েছে।

যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়ার রাজধানী দামেস্ক পৃথিবীর বসবাসের অযোগ্য শহরের তালিকায় তার শীর্ষ স্থান ধরে রেখেছে।

 

 

বাংলা প্রবাহ/ সু

Ecare Solutions
শর্টলিংকঃ