করোনায় দৈনিক মৃত্যুতে শীর্ষে ব্রাজিল

Ecare Solutions

গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১ হাজার ২২৭ জন। বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ৬৪ লাখ ৩৮ হাজার ২০ জনে। ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৪ লাখ ৮৪ হাজার ৫৪৭ জন।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বজুড়ে সবচেয়ে বেশি সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে জাপানে। আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৯৮ হাজার ৫৬৩ জন এবং মারা গেছেন ১৫৪ জন। অন্যদিকে দৈনিক প্রাণহানির তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে ব্রাজিল। ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১৮৮ জন এবং নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ১৭ হাজার ৪০৯ জন।

মঙ্গলবার ৯ আগস্ট সকালে ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে পাওয়া সর্বশেষ তথ্য যায়।

এতে বিশ্বব্যাপী করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৫৮ কোটি ৯৮ লাখ ৯৫ হাজার ৭০১ জনে।। অন্যদিকে মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৬৪ লাখ ৩৮ হাজার ২০ জন।

যুক্তরাষ্ট্রে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৬ হাজার ৪০০ জন এবং মারা গেছেন ১২৭ জন।

ফ্রান্সে আক্রান্ত হয়েছেন ৫ হাজার ৯০ জন এবং মারা গেছেন ১০৯ জন। দক্ষিণ কোরিয়ায় হয়েছেন ৫৫ হাজার ২৯২ জন এবং মারা গেছেন ২৯ জন। ইতালিতে আক্রান্ত হয়েছেন ১১ হাজার ৯৭৫ জন এবং মারা গেছেন ১১৩ জন। ডেনমার্কে আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ৬৩১ জন এবং মারা গেছেন ৫০ জন।

তাইওয়ানে মারা গেছেন ২৬ জন এবং নতুন করে ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন ১৫ হাজার ৪১২ জন। ইরানে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৩৭৯ জন এবং মারা গেছেন ৫৪ জন।

রাশিয়ায় মারা গেছেন ৪৫ জন এবং নতুন করে ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন ১৭ হাজার ৮৬২ জন। নিউজিল্যান্ডে আক্রান্ত হয়েছেন ৪ হাজার ১৭৩ জন এবং মারা গেছেন ১৩ জন। অস্ট্রেলিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন ২২ হাজার ২০১ জন এবং মারা গেছেন ১৪ জন। একইসময়ে থাইল্যান্ডে আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ৮৪২ জন এবং মারা গেছেন ৩৪ জন। চিলিতে আক্রান্ত হয়েছেন ৭ হাজার ৫০৪ জন এবং মারা গেছেন ৩৫ জন।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। এরপর ২০২০ সালের ১১ মার্চ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) করোনাকে ‘বৈশ্বিক মহামারি’ হিসেবে ঘোষণা করে। এর আগে একই বছরের ২০ জানুয়ারি বিশ্বজুড়ে জরুরি পরিস্থিতি ঘোষণা করে সংস্থাটি।

 

 

বাংলা প্রবাহ/ সু

Ecare Solutions
শর্টলিংকঃ